উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিসহ ৩ জনের জেল

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জের সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হকন ভূঁইয়ার সমাবেশে হামলা ও গাড়ি ভাঙচুর মামলায় জেলহাজতে যেতে হলো উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খাজা আহমেদসহ তিনজনকে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেলে ফরিদগঞ্জ আমলী আদালতের বিচারক মো. হাসানুজ্জামানের আদালতে হাজিরা দিতে যান ছাত্রলীগের সাবেক এই নেতাসহ তিনজন। এসময় বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। অন্য দুজন হলেন ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহফুজুল হকের ছোটভাই রিমন ও মাসুদ নামে আরেকজন।

জানা গেছে, গত বছরের ২৯ জানুয়ারি  ফরিদগঞ্জ বিআরডিবি চত্বরে সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে সভা করছিলেন। ওই সভায় বর্তমান সংসদ সদস্য মুহম্মদ সফিকুর রহমানের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খাজা আহমেদ ও তার সহযোগীরা হামলা করেন। এতে বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হন।

হামলায় সভামঞ্চ এবং সাবেক সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত গাড়িও ভাঙচুরের শিকার হয়। ওই দিনের হামলায় ভাঙচুর হওয়া গাড়ির চালক আব্দুল কাদের বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। এক বছর পর সেই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে যান খাজা এবং আরো দুজন।

আদালত তিনজনের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশের পর খাজা আহমেদ অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে পুলিশি প্রহরায় ভর্তি করা হয়। অন্য দুজনকে জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *