করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ২৫ ব্যাংক কর্মকর্তা

ব্যাংকগুলোতে বাড়েছে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯ ) আক্রান্তের সংখ্যা। নতুন করে ১৪ জন ব্যাংক কর্মকর্তা এ ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছেন।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ইসলামী ব্যাংক নীলফামারীর সৈয়দপুর শাখার চারজন, রূপালী ব্যাংকের দুইজন, সাউথইস্ট ব্যাংকের খাতুনগঞ্জ শাখার একজন, অগ্রণী ব্যাংকের দুইজন এবং সোনালী ব্যাংকের ৫ জন।

করোনা শনাক্তের সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংকগুলোর সংশ্লিষ্ট শাখা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে ২৫ ব্যাংক কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন একজন।

সোমবার (৪ মে) সংশ্লিষ্ট ব্যাংক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সাউথইস্ট ব্যাংকের চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ শাখার একজন সিকিউরিটি গার্ড করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম কামাল হোসেন। তাই গত সপ্তাহ থেকে শাখাটি লকডাউন আছে। এর আগে গত মাসে বংশাল শাখার দুইজন সিকিউরিটি গার্ড আক্রান্ত হলেও এখন তা খুলে দেওয়া হয়েছে। আক্রান্তরা শনাক্ত হওয়ার পর ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইসলামী ব্যাংক সৈয়দপুর শাখার ওই চার কর্মকর্তা জ্বর সর্দি ও গলা ব্যথায় আক্রান্ত ছিলেন। গত ৩০ এপ্রিল তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হলে শনিবার রাতে তাদের ফলাফল পজিটিভ আসে। ওই চার কর্মকর্তার মধ্যে একজন দিনাজপুর জেলার পূর্বতীপুরে আছেন। বাকি তিনজনের মধ্যে দুইজন সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালের আইসোলেশন এবং অপরজন নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালেরর আইসোলেশন এ চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ২৯ এপ্রিল থেকে শাখাটি লকডাউন আছে।

এছাড়া নতুনভাবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন রূপালী ব্যাংকের দুইজন। তাদের মধ্যে একজন উপ-মহাব্যবস্থাপক এবং একজন প্রিন্সিপাল অফিসার পদের কর্মকর্তা। তারা দুজনেই বাসায় থাকা অবস্থায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ব্যাংকের শাখার সঙ্গে তাদের কোনো যোগাযোগ ছিল না।

সোনালী ব্যাংকের ৫ জন কর্মকর্তা নতুনভাবে আক্রান্তদের তালিকায় রয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন নরসিংদী, একজন কিশোরগঞ্জ, একজন রমনা কর্পোরেট শাখার ও দুইজন রংপুর বাজার শাখায় কর্মরত আছেন। অগ্রণী ব্যাংকের সাভার নবীনগর শাখার একজন এবং ওয়াসা ভবন শাখার একজন কর্মকর্তা নতুনভাবে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন সোনালী ব্যাংকের রংপুর বাজার শাখার ৪ জন কর্মকর্তা। ওই দিন থেকেই শাখাটি বন্ধ রয়েছে। এর আগে, গত ২০ এপ্রিল একজন কর্মকর্তার করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ায় রাজধানীর দিলকুশা শিল্প ভবনের সোনালী ব্যাংকের কর্পোরেট শাখা সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শাখাটি এখনও বন্ধ রয়েছে।

২ মে (রোববার) রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব)-এর নীলফামারী জেলার ডিমলা থানার ডাঙ্গারহাট শাখার একজন কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে শাখাটির লকডাউন ঘোষণা করা হয়।

বেসরকারি মার্কেন্টাইল ব্যাংকের রাজধানীর দারুস সালাম শাখার এক কর্মকর্তার কোভিড-১৯ পজিটিভ আসায় শাখাটির কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। আরেকটি শাখার একজন কর্মকর্তা প্রাথমিক পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ বলার প্রেক্ষিতে গত ৯ এপ্রিল থেকে ওই শাখা লকডাউন করা হয়।

অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের নিচতলায় অবস্থিত প্রধান শাখা। তবে ১১ এপ্রিল একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ব্যাংকটি জানায় চূড়ান্ত রিপোর্টে করোনা নেগেটিভ এসেছে ঐ কর্মকর্তার। তাই লকডাউন প্রত্যাহার করে পুনরায় কার্যক্রম শুরু হয়েছে অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে।

এদিকে গত ২৬ এপ্রিল করোনা প্রথম ব্যাংকার হিসাবে মুজতবা শাহরিয়ার নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু হয়। তিনি বেসরকারি দি সিটি ব্যাংকের মানবসম্পদ বিভাগে কর্মরত ছিলেন। মৃত্যুকালে সময় তার বয়স হয়েছিল ৪০ বছর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *