করোনামুক্ত হয়েও বাঁচতে পারলেন না ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরী

বগুড়ায় করোনায় প্রাণ গেলো আরও এক চিকিৎসকের। করোনায় মারা যাওয়া ওই চিকিৎসকের নাম ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরী (৬১)। তিনি মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে ঢাকায় আসগর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

করোনামুক্ত হলেও ফুসফুসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছিল।

বগুড়া জেলার দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের বাসিন্দা ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (জনস্বাস্থ্য) হিসেবে ২০১৯ সালের ১৯ মার্চ তিনি অবসরে যান । করোনায় এর আগে বগুড়ার আরও ৩ চিকিৎসক প্রাণ হারিয়েছেন।

ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরীর ছোটভাই পরিমল চৌধুরী জানান, উপসর্গ দেখা দিলে নির্মলেন্দু চৌধুরী গত ২ আগস্ট বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে নমুনা দেন। পরদিন তিনি করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। এরপর তিনি বাড়িতেই ছিলেন। কিন্তু শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থতা অনুভব করলে তাকে ৫ আগস্ট বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

শজিমেক হাসপাতালের সহকারি পরিচালক আব্দুল ওয়াদুদ জানান, শজিমেক হাসপাতালের প্রাক্তন উপ-পরিচালক ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরী ভর্তি হওয়ার পর পরই মেডিকেল বোর্ড তাকে পরীক্ষার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করেন।

ছোট ভাই পরিমল চৌধুরী জানান, ৫ আগস্ট রাতে ঢাকায় মুগদা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তির ১৩ দিনের মাথায় দ্বিতীয় দফা নমুনা পরীক্ষায় ডা. নির্মলেন্দু চৌধুরী করোনামুক্ত বলে সনাক্ত হন। কিন্তু ফুসফুসে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পরদিন ১৮ আগস্ট তাকে আসগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এক পর্যায়ে তাকে ২০ আগস্ট ভেন্টিলেশনে নেওয়া হয়। তবে অবস্থার অবণতি হওয়ায় ২২ আগস্ট তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়। সেখানে ক্রমেই তার অবস্থার অবণতি হচ্ছিল। এরপর ৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুর ২টা নাগাদ কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি জানান, রাত ১০ টাদা নাগাদ লাশ বগুড়ায় আসার কথা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *