করোনায় ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু; দু’বার পরীক্ষায় নেগেটিভ এসেছিল ফল

28

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বেসরকারি সিটি ব্যাংকের এক কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। তার নাম মুজতবা মুজতবা শাহরিয়ার (৪০)। তিনি ব্যাংকটির মানবসম্পদ বিভাগের ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট (এফভিপি) ছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৪০ বছর। তার সংসারে স্ত্রী ও এক মেয়ে রয়েছে। করোনা সন্দেহে তিনি দু’বার টেস্ট করালেও ফলাফল নেগেটিভ আসে। তৃতীয়বার পরীক্ষা করে তার শরীরে করোনাভাইরাসের প্রমাণ মেলে।

রোববার সকালে ঢাকার মুগদা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু ঘটে বলে সিটি ব্যাংকের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। ওই কর্মকর্তার মৃত্যুতে সিটি ব্যাংকের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ এবং পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানানো হয়েছে।

মুগদা হাসপাতালের একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, হাসপাতালে দুইজন মারা গেছেন। তার মধ্যে একজন ব্যাংক কর্মকর্তা।

মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড-১৯ বিষয়ক টিমের ফোকাল পার্সন সহকারী অধ্যাপক ডা. মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসের রোগী ছিলেন। আজ (রোববার) সকাল ১০টায় তার মৃত্যু হয়েছে।

দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে লকডাউনের মধ্যেও ব্যাংক খোলা রয়েছে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজন ব্যাংকার আক্রান্তও হয়েছেন। তবে মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম।

সিটি ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, কয়েকদিন ধরে ওই কর্মকর্তা সর্দি-কাশি এবং জ্বরে ভুগছিলেন। চিকিৎসকের পরামর্শে দুই বার তিনি নমুনা পরীক্ষা করিয়েছিলেন। তবে দুবারই ‘নেগেটিভ’ আসে। চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি।

অসুস্থতা বাড়লে শনিবার সকালে আবারও মুগদা হাসপাতালে যান ওই ব্যাংক কর্মকর্তা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শাহরিয়ারকে ভর্তি করে নেন। নমুনা আবার পরীক্ষা করে করোনাভাইরাস ‘পজেটিভ’ আসে।

সিটি ব্যাংকের ওই কর্মকর্তাকে হাসপাতালে ভর্তির পরই মোবাইল ফোনে তার পরিবারকে কল করে তার সঙ্গে দেখা না করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। মৃত্যুর পর তার পরিবারের সদস্যদের বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। ওই কর্মকর্তার লাশ স্বজনদের কাছে দেওয়া হয়নি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিধি অনুযায়ী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রাজধানীর তালতলা কবরস্থানে দাফন করে।

সূত্র:যমুনা টিভি