খবর পড়ছি আর চোখ অশ্রুতে ভরে আসছে: জয়া

14

করোনা ভাইরাসের কারণে দিশেহারা মানুষ। এর মধ্যে ঘটে চলেছে অন্য দূর্ঘটনাও। সোমবার (২৯ জুন) মুন্সীগঞ্জের মীরকাদিম লঞ্চঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া মর্নিং বার্ড লঞ্চ ডুবে প্রাণ হারিয়েছেন সেই লঞ্চের বেশ ক’জন যাত্রী।

প্রতিদিনের মতো ও ব্যাংক কর্মকর্তা, ফল ও সবজি ব্যবসায়ী, গার্মেন্টস কর্মী স্ব স্ব কর্মের উদ্দেশে ঢাকায় যাত্রা করেছিলেন। সদরঘাট যাওয়ার পথে শ্যামবাজার সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে ময়ূর-২ লঞ্চের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায় তাদের লঞ্চটি। কাজে যাওয়া হয়নি তাদের। প্রাণ নিয়ে ঘরেও ফেরা হয়নি।

শোক প্রকাশ করেছেন অনেকেই। তাদের শোকে কাতর হয়েছেন দুই বাংলার জনপ্রিয় নায়িকা জয়া আহসানও। সোমবার এক ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘বুড়িগঙ্গায় আবার লঞ্চ ডুবেছে। নদীতে ডুবে কী অসহায়ভাবে কতগুলো মানুষ অকাতরে প্রাণ হারাল। প্রত্যেকটা মানুষের আলাদা জীবন। প্রত্যেকের সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে আরও কত কত মানুষের জীবন। আহা, নদীর তলায় কত স্বপ্নের জীবন্ত সমাধি হলো!

খবরে পড়ছি, করোনার মহামারীর আঘাতে বাংলাদেশে আরও ৩ কোটি মানুষ নতুন করে গরিব হবে। হতদরিদ্র থেকে মধ্যবিত্ত পর্যন্ত কোটি কোটি মানুষ চোখে অন্ধকার দেখছে। এর মধ্যেই এল আম্পানের তাণ্ডব। তারপর নৌকাডুবি। বড় দুর্যোগে পর্যুদস্ত মানুষের ওপর ঢেউয়ের মতো একটার পর একটা আরও দুর্যোগ আসছেই।

বুড়িগঙ্গায় নৌকাডুবির একেকজনের খবর পড়ছি, আর চোখ অশ্রুতে ভরে আসছে। এক যুবক একা বেঁচে আছে, মৃত্যু হয়েছে পরিবারের আর সবার। প্রত্যেকটা ঘটনা এত কষ্টের যে পড়াও যায় না। মানুষের জীবনকে কি আমরা এতটাই মূল্যহীন করে ফেললাম?’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন