ভারতের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন আসতে পারে আগামী মাসেই

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। এই ভাইরাসের বিষাক্ত ছোবলে অসহায় হয়ে পড়েছে আমেরিকা, ব্রিটেন, ইতালি, স্পেন, ফ্রান্স ও ব্রাজিলের মতো দেশ। এছাড়া আরও দুই শতাধিক দেশে একযোগে ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছে এই ভাইরাস। কোনও ধরনের প্রতিষেধক না থাকায় বিশ্বজুড়ে প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। ভারতের চরম আকার ধারণ করেছে করোনা পরিস্থিতি।

এমন অবস্থায় সুখবর জানিয়েছ, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ বা আইসিএমআর। তারা জানিয়েছে, আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যেই করোনার ভ্যাকসিন আনার পরিকল্পনা করছে তারা। হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেকের সঙ্গে যৌথভাবে ‘কোভ্যাকসিন’ নামে সম্ভাব্য প্রতিষেধক তৈরি করেছে আইসিএমআর।

আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যে ভারতে তৈরি কোভ্যাকসিনের যাবতীয় ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা সেরে ফেলার জন্য ভারত বায়োটেক ও মেডিকেল কলেজগুলোকে অনুরোধ করে চিঠি লিখেছেন আইসিএমআরের মহাপরিচালক বলরাম ভার্গব। সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

আইসিএমআর জানিয়েছে, ভারতে তৈরি এই প্রথম করোনা প্রতিষেধকের ১২টি প্রতিষ্ঠানে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হবে। আইসিএমআর এসব প্রতিষ্ঠানকে দ্রুত এ ট্রায়াল শেষ করতে অনুরোধ করেছে। কারণ, এটিকে টপ প্রায়োরিটি প্রজেক্ট হিসেবে গুরুত্ব দিচ্ছে তারা এবং ভারত সরকারের সর্বোচ্চ স্তর থেকে বিষয়টি নজরদারি করা হচ্ছে।

গোটা বিশ্বে ইতিমধ্যেই করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটিরও বেশি মানুষ। ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এখনও পর্যন্ত বিশ্বের কোথাও করোনার কোনও টিকা বাজারে আসেনি। বেশ কয়েকটি টিকার ক্লিনিকাল ট্রায়াল চলছে।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রথম দেশীয় করোনা টিকার ক্লিনিকাল ট্রায়াল চালানোর জন্য বিশাখাপত্তনম, রোহতক, দিল্লি, পটনা, বেলগাঁও (কর্নাটক), নাগপুর, গোরখপুর, হায়দরাবাদ, গোয়া, আর্য নগর, কানপুর ও কাট্টানকুলাথুরের (তামিলনাড়ু) প্রতিষ্ঠানগুলোকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে আইসিএমআর সূত্রের খবর।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *